Wednesday , September 22 2021

গোয়ালঘরে কোভিড সেন্টার, ক’রোনা সারছে দুধ-গোমূত্রে!

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: গোয়ালঘরেই কোভিড সেন্টার। করোনা সারছে দুধ এবং গোমূত্রে! এহেন চিত্রই এবার দেখা গেল গুজরাটে। বর্তমানে করোনার আগ্রাসী রূপ দেখছে ভারত। ফুরোচ্ছে অক্সিজেন।

হাসপাতালে কিংবা আইসোলেশন সেন্টারে নেই শয্যা। আর সেই কারণেই উত্তর গুজরাটের বাঁশকাঁথা জেলার তেতোড়া গ্রামের একটি গোয়ালঘরকে কোভিড কেয়ার সেন্টার বানানো হয়েছে।

যার নাম দেওয়া হয়েছে ‘ভেদালক্ষণ পঞ্চগাব্য আয়ুর্বেদ আইসোলেশন সেন্টার।’ জানা গিয়েছে, বর্তমানে ওই বিশেষ সেন্টারটিতে সাত জন রোগী আছেন। যাঁদের আয়ুর্বেদিক ওষুধ, গোরুর দুধ, গোমূত্র খাওয়ানো হচ্ছে নিয়মিত।

পাশাপাশি চালানো হচ্ছে অ্যালোপ্যাথি ট্রিটমেন্ট।গত ৫ মে রাজারাম গৌশালা আশ্রমের উদ্যোগে ওই কোভিড কেয়ার সেন্টার খোলা হয়। যেসব রোগীর হালকা উপসর্গ রয়েছে, তাঁদেরই ভর্তি নেওয়া হচ্ছে সেখানে।

এই প্রসঙ্গে গোধাম মহাতীর্থ পথমেদার বাঁশকাঁথা জেলার প্রতিনিধি মোহন যাদব বলেন, যাঁদের দেহে বিশেষ উপসর্গ নেই বললেই চলে, অথচ কোভিড আক্রান্ত, তাঁদের চিকিৎসা করছি আমরা।

আট ধরনের আয়ুর্বেদিক ওষুধের উপর ভরসা রাখা হচ্ছে। গরুর দুধ, ঘি এবং গো মূত্র ব্যবহার করেই ওই ওষুধ তৈরি করা হচ্ছে।’মোহন আরও জানিয়েছেন যে পঞ্চগাব্য আয়ুর্বেদ থেরাপির পাশাপাশি গুজরাটের ওই Covid Care-এ ‘গৌ তীর্থ’ নামের একটি ওষুধ ব্যবহার করা হচ্ছে।

যা দেশি গোরুর মূত্র ব্যবহার করে তৈরি করা হয়। পাশাপাশি জড়িবুটি এবং গোমূত্র খাওয়ানো হচ্ছে করোনা আক্রান্তদের। এছাড়াও দেহে অনাক্রম্যতা বাড়ানোর জন্য চবণপ্রাস খাওয়ানো হচ্ছে নিয়মিত।

চিকিৎসার জন্য আইসলেশন সেন্টারটিতে দু’ জন কবিরাজ এবং দু’ জন MBBS ডাক্তার রয়েছেন। কারও প্রয়োজন হলে তবেই অ্যালোপ্যাথি চিকিৎসা হচ্ছে। এমনটাই জানিয়েছেন যাদব।

সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, ওই সেন্টারে করোনা রোগীদের চিকিৎসা বিনামূল্যেই করা হচ্ছে।করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে অত্যধিক গোমূত্র পান! অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রামদেব?

গোয়ালঘরে করোনা চিকিৎসার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের কাছে অনুমতি চাওয়া হয়েছিল, জানিয়েছেন জেলাশাসক আনন্দ প্যাটেল। প্রশাসনের তরফ থেকে সেই আর্জি মঞ্জুর করা হয়। এরপরেই তৈরি হয় ওই করোনা কেয়ার সেন্টারটি।

এই প্রথম নয়। গোমূত্র করোনা সারাবে, এই বিশ্বাস থেকেই গত বছর উত্তর কলকাতাতেও (North Kolkata) এক বিশেষ ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়েছিল। জোড়াসাঁকোর এক গোয়ালে গোমূত্রের কাপে চুমুক দিয়েছিলেন অনেকেই।

ডেটলাইন দুর্গাপুর: ‘গোমূত্র খাই তাই ভালো থাকি-গাধারা এসব বুঝবে না!’ ফের পুরনো ‘ফর্মে’ দিলীপসম্প্রতি বাল্লিয়া জেলার বৈরিয়ার বিধায়ক Surendra Singh-ও কোভিড সারানোর জন্য গোমূত্র খাওয়ার আবেদন জানিয়েছেন।