Wednesday , September 22 2021

ফেঁসে যাচ্ছেন অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি!

প.র্নোকাণ্ডে গ্রে.প্তার হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রা। বর্তমানে তিনি পুলিশ হেফাজতে আছেন। এরই মধ্যে ফাঁস হয়েছে রাজ কুন্দ্রার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট। বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য।

ধারণা করা হচ্ছে, এসব তথ্যের কারণে ফেঁসে যেতে পারেন অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি। বড়সড় বিপদে পড়তে যাচ্ছেন তিনি। স্বামীর প.র্নোগ্রাফি ব্যবসায় অভিনেত্রী কোনোভাবে জড়িত আছেন কিনা তা খতিয়ে দেখছে মুম্বাই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ। এমন তথ্যই প্রকাশ করেছে ভারতীয় একাধিক সংবাদমাধ্যম।

স্বামীর বিভিন্ন ব্যবসার সঙ্গে জড়িত আছেন শিল্পা। প.র্নো ব্যবসার সঙ্গে জড়িত আছেন কিনা তা জানার জন্য শিল্পাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। টানা ৫ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে

তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এ সময় একই বক্তব্য দিয়েছেন শিল্পা। জানিয়েছেন, তার স্বামী প.র্নো ব্যবসার সঙ্গে জড়িত না। স্বামীকে নির্দোষ দাবি করেছেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, জিজ্ঞাসাবাদের সময় স্বামীর পাশেই ছিলেন শিল্পা। পাশাপাশি বসানো হয়েছিল তাদের। জিজ্ঞাসাবাদে শিল্পা জানান, রাজ কুন্দ্রার ‘ভিয়ান ইন্ডাস্ট্রিতে’ নির্দেশক হিসেবে কাজ করেছেন শিল্পা। কিছুদিন আগে ওই পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি।

শিল্পা শেঠির দেওয়া তথ্যকে সামনে রেখে ভিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজের আয়-ব্যয়ের হিসাব খতিয়ে দেখছে পুলিশ। শিল্পার ব্যাংক একাউন্টও খতিয়ে দেখবে তারা। তবে রাজ গ্রেপ্তারের পর অনেক তথ্য মুছে ফেলেছেন শিল্পা ও রাজের সহকর্মীরা।

‘হটশট’ অ্যাপের ২০ লাখের বেশি গ্রাহক ছিল। ১২১টি ভিডিও ১২ লাখ ডলারে বিক্রি করতে চেয়েছিলেন রাজ কুন্দ্রা। এই অ্যাপটি বাদ দিয়ে নতুন অ্যাপ লঞ্চ করার পরিকল্পনা ছিল তার। সেটির নাম ঠিক করা হয়েছিল ‘বলিফেম’। রাজ কুন্দ্রার ফাঁস হওয়া হোয়াইটসঅ্যাপ চ্যাট থেকে এমনটাই জানতে পেরেছে মুম্বাই পুলিশ।

প.র্নো ছবি বানানোর অভিযোগে গেল সোমবার (১৯ জুলাই) রাজ কুন্দ্রাকে গ্রেপ্তার করেছিল মুম্বাই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ। এরপর শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাজ-শিল্পার মুম্বাইয়ের বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় ৫১টি প.র্নোভিডিও উদ্ধার করা হয়।

স্বামীর গ্রেপ্তার ঠেকাতে ২৫ লাখ ভারতীয় রূপি ঘুষ দিয়েছিলেন শিল্পা। তাতেও কাজ হয়নি। পরে অবশ্য শিল্পা দাবি করেছেন, তার স্বামী প.র্নো ব্যবসার সঙ্গে জড়িত নন। ইরোটিক ভিডিও আর প.র্নো এক জিনিস না।

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে ‘আর্মস প্রাইম মিডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড’ প্রতিষ্ঠা করেন রাজ কুন্দ্রা। তার ছয় মাস পরেই ‘হটশট’ নামে অ্যাপ তৈরি করেন তারা। যা পুলিশের কাছে প.র্নোঅ্যাপ নামে চিহ্নিত হয়েছে।