Wednesday , September 22 2021

অবশ্যই, আমার মতে সৌম্য একজন কার্যকরী অলরাউন্ডার : মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ

জিম্বাবুয়ে সিরিজে একটিমাত্র টি-টোয়েন্টি ম্যাচ বাদে সবকটি ম্যাচে জয়লাভ করেছে টাইগাররা। প্রথমে একমাত্র টেস্ট ম্যাচে বড় ব্যবধানে স্বাগতিকদের হারিয়েছে বাংলাদেশ। এরপর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের সব কয়টি ম্যাচেই জয় লাভ করে তামিম বাহিনী।

টি-টোয়েন্টি সিরিজের শুরুটা ভালো করলেও দ্বিতীয় ম্যাচে হেরে চিন্তায় পড়ে বাংলাদেশ। কিন্তু শেষপর্যন্ত মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার এবং শামীম পাটোয়ারী দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে জয়লাভ করে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ।

নিয়মিত পারফরম্যান্স করতে না পারায় জাতীয় দল থেকে এক প্রকার বাদ পড়েছিলেন সৌম্য সরকার। কিন্তু সেই সৌম্য সরকার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ম্যান অব দ্যা সিরিজ নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদিকে যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের ক্রিকেটার শামীম পাটোয়ারী দুই ম্যাচে দুর্দান্ত খেলেছে।

বিশেষ করে আজ শেষের দিকে তার অপরাজিত ১৫ বলে ৩১ রানের সুবাদে জয় পেয়েছে টাইগাররা। তাইতো ম্যাচ শেষে এই দুইজনকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। শামীম পাটোয়ারী এবং সৌম্য সরকার কে নিয়ে অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন।

“ছেলেরা তাদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছে। সবাই দলের জন্য অবদান রেখেছে। সৌম্য যেভাবে ব্যাটিং করেছে, সাকিব যেভাবে ব্যাটিং করেছে- সবার অবদান ছিল। শেষে শামীম তো দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেলল। কুইক ফায়ার ইনিংস! সব মিলিয়ে দারুণ ব্যাটিং হয়েছে এবং এটি সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এসেছে।’

যে পরিকল্পনা করা হয়েছিল, তা সঠিকভাবে প্রয়োগ হয়েছে বললেন অধিনায়ক, ‘যখন আপনি ১৯৪ রানের মতো বড় লক্ষ্য পাবেন, তখন আপনাকে বড় জুটি গড়তে হবে এবং নিয়মিত রান বের করে নিতে হবে। আমরা চেষ্টা করেছি যত কম ডট বল দেওয়া যায় এবং প্রতি ওভারেই বাউন্ডারি হাঁকানোর চেষ্টা করেছি। এটি আমাদের পরিকল্পনা ছিল। আমরা জুটি গড়ার চেষ্টা করেছি এবং যতটা পারা যায় দ্রুত লক্ষ্যের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করেছি।’

সৌম্যর অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের স্বীকৃতিও দিলেন মাহমুদউল্লাহ, ‘অবশ্যই, আমার মতে সৌম্য একজন কার্যকরী অলরাউন্ডার। আমি যখন তাকে বোলিংয়ে আনলাম, তখন সে দুইটি উইকেট নিলো এবং রান আটকানোর চেষ্টা করেছে। দলের প্রয়োজনে যখন তার ব্যাট থেকে রান দরকার ছিল, তখন সে ব্যাট হাতেও দাঁড়িয়ে গেছে এবং দারুণ ব্যাটিং করেছে।’