Wednesday , September 22 2021

সু’ন্দরী স্ত্রী’র নি’চে চা’পা প’ড়ে প্রা’ণ গেলো স্বামীর

আরো একটি অ’দ্ভু’ত ঘ’ট’নার সা’ক্ষী হল বি’শ্ববা’সী। যা ডা’ক্তা’র থেকে শুরু করে আ’ত্মীয়-স্ব’জন, কেউ বিশ্বা’স করতে পারছে না। কিন্তু ঘ’ট’না শতভাগ স’ত্যি! সিঁ’ড়ি দিয়ে ও’ঠার সময় পা পি’ছ’লে স্বামীর গায়ের ও’পর প’ড়ে যান ১২৮ কেজি ও’জনের স্ত্রী।গু’রু’ত’র আ’হ’ত অবস্থায় তাদের হা’সপা’তা’লে ভ’র্তি করা হলেও, দুজনেরই মৃ’ত্যু হয়।

এ দ’ম্প’তি হলেন- ন’টব’র’লাল বি’থালিনী ও ম’ঞ্জু বি’থা’লিনী। তারা থাকতেন ভা’র’তের রা’জকো’টের অ’ভিজাত কা’লাভা’ড় রো’ডের র’মধা’ম সো’সা’ইটিতে।

সোমবার ভোরে ছেলে আশিসের শ্বা’সক’ষ্টের খবর পেয়ে সিঁ’ড়ি দিয়ে হু’ড়মু’ড়িয়ে উঠে ছেলের ঘরে যা’চ্ছিলেন ম’ঞ্জু’লাদে’বী। ঠিক আগেই ছিলেন স্বা’মী ন’টবর’লাল।সে সময় পা পি’ছ’লে ১২৮ কে’জির মঞ্জু’লা স্বামীর ও’পর প’ড়ে যান। ন’ট’বর’লালের

মাথায় মা’রা’ত্মক চো’ট লাগে, আ’হ’ত হন ম’ঞ্জু’লাও। হা’সপা’তা’লে নিয়ে যাওয়া হলে ম’স্তি’ষ্কে র’ক্তক্ষ’র’ণের জে’রে দুজনেরই মৃ’ত্যু হয়। এই দ’ম্প’তির ছেলে আশিসের স্ত্রী নিশা তাদের বাঁ’চা’নোর চে’ষ্টা করলে পি’ছ’লে প’ড়েন তিনিও। পায়ে চো’ট নিয়ে

তিনিও হা’সপা’তা’লে ভ’র্তি।জানা গেছে, র’মধা’ম সোসাইটির দো’তলা বাং’লোর এ’কত’লায় থাকতেন ওই স্বামী স্ত্রী, দো’ত’লায় ছেলে আশিস ও পু’ত্রব’ধূ নি’শা। সোমবার ভোর চা’রটে নাগাদ আ’শিসের শ্বা’সক’ষ্ট শুরু হলে নি’শা নীচে ও’ষু’ধ আনতে যান। তখনই বি’ষয়টি জানতে পারেন তিনি।