ভা’র’ত, বাং’লা’দে’শ থেকে পু’রু’ষ নিতে চাই যে ৬টি দে’শ, ভ’য়াব’হ পু’রু’ষ সংক’টে ৬ দে’শ

যেখানে হা’মেশাই পেপার বা খবরের চ্যানেল খুললে কন্যাভ্রুন হ;;ত্যা;র কথা শোনা যায় যার দরুন নারীর সংখ্যা অনুপাতে কম হয়ে দাড়িয়েছে সেখানে এমন কিছু দেশ আছে যেখানে পুরুষ সংকট দেখা দিচ্ছে।

ইউরোপের স্বনামধন্য কয়েকটা দেশ রয়েছে যেখানে নারী ও পুরুষ এর শতকরা হারের মধ্যে অনেক গরমিল রয়েছে। রাশিয়া, লাটভিয়া, বেলারুশ, লিথুনিয়া, আর্মেনিয়া, ইউক্রেন এই দেশগু’লোতে পুরুষ এর তুলনায় মহিলার সংখ্যা অনেক বেশি। পরিসংখ্যান অনুযায়ী লাটভিয়ায় ১০০ জন পুরুষের তুলনায় নারীর সংখ্যা ১১৮। লিথুনিয়ার প্রতি ১০০ জন পুরুষের তুলনায় নারীর সংখ্যা ১১৭.২।

আর্মেনিয়ার প্রতি ১০০ জন পুরুষের তুলনায় নারীর সংখ্যা ১১৫.৫। জানা গেছে যে এরমধ্যে বাল্টিক রাষ্ট্র লাটভিয়া পুঁজিবাদী ব্যবস্থায় পরিনত হলেও সেখানে পুরুষদের তুলনায় মহিলারা এগিয়ে গেছেন। এছাড়াও দেখা গেছে এখানের মেয়েরা, পুরুষ চেয়ে গড়ে 11 বছর করে বেশী বাচছেন যার ফলস্বরূপ নারী-পুরুষের মধ্যে সামাজিক ভারসাম্যহীনতার তৈরি হচ্ছে।

লাটভিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে দেখা যাচ্ছে শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা ৫০% বেশি। সমাজবিজ্ঞানের বাইবা বেলা বলেছেন- “এসব দেশগু’লোতে মেয়েরা যে বয়সে সংসার করার জন্য তৈরী হয় সেই বয়সে ছেলেরা মা;রা যাচ্ছে না হলে আ’ত্মহ;ত্যা করছে। এই আ’ত্মহ;ত্যা;র সংখ্যা স্বাভাবিক মৃ;ত্যু;র তুলনায় চার গু’ন বেশী।”

নারী পুরুষ এর অমিল ঠিক করার জন্য এই সব দেশে এশিয়ার জনবহুল দেশগু’লো যেমন ভারত বাংলাদেশ থেকে পুরুষ নিতে আগ্রহী হয়ে উঠেছে।