মি”ল”ন না করলে কার ক্ষতি বেশি পুরুষ না মহিলাদের?

আমরা সাধারনত জানি যে যৌ”ন মি”ল”ন করলে করলে ক্ষতির সম্মুক্ষীন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কিন্তু মহিলাদের উদ্দেশে বিশেজ্ঞদের পরামর্শ নিজের শরীরটাকে ভালবাসুন, আপনি নিজে যদি নিজের সত্তাকে সম্মান না করেন তা হলে একজন পুরুষকে কীভাবে তা করবেন? যৌ”নমি”লন কোনও কর্তব্য নয়, এটা জীবনেরই অংশ। জীবনের এই অধ্যায়ের সঙ্গে মানিয়ে নিন।

বহু মহিলা এখনও ‘যৌ”ন”তা’ শব্দটাই উচ্চারণ করতে ভয় পান। এমনটা যদি হয় তা হলে যৌ”নজীবনে কতটা আতঙ্ক আপনাকে গ্রাস করে থাকবে? ভাবুন। টিভি বা সিনেমায় দেখা গ্ল্যামারাস নারীর সঙ্গে নিজেকে তুলনা করবেন না। কারণ, সাধারণ মানুষের চেহারা মডেলদের মতো হয় না।

প্রত্যেকের শরীরেই নানা ধরনের খামতি থাকে, কিন্তু যৌ”নমি”লনে এই বিষয়গুলিকে মনে গেড়ে বসতে দেবেন না। যৌ”নক্রীড়ায় নানা পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে, নিজেকে ‘রিল্যাক্সড’ রাখুন। হাসি পেলে হেসেও নিন, কোনও ক্ষতি নেই।

নারীদের যৌ”নমি”লন :
অনেক সময়ই বহু মহিলা তাঁর গো”পনা”ঙ্গের আকৃতিগত বিষয়ে নিজেকে গুটিয়ে নেন, এমনটা করবেন না, সবাই একরকম হয় না, আনন্দে মাতুন, খুব অসুবিধা থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। একজন পুরুষ যেমন আপনাকে খুশি করবেন, তেমনই যৌ”নমি”লনকে পরিপূর্ণ করতে হলে আপনাকেও একজন পুরুষকে খুশি করার মতো মানসিকতা রাখতে হবে।

আমরা সাধারনত জানি যে যৌ”নমি”লন করলে করলে ক্ষতির সম্মুক্ষীন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কিন্তু মহিলাদের উদ্দেশে বিশেজ্ঞদের পরামর্শ নিজের শরীরটাকে ভালবাসুন, আপনি নিজে যদি নিজের সত্তাকে সম্মান না করেন তা হলে একজন পুরুষকে কীভাবে তা করবেন? যৌ”নমি”লন কোনও কর্তব্য নয়, এটা জীবনেরই অংশ। জীবনের এই অধ্যায়ের সঙ্গে মানিয়ে নিন।

আরো পড়ুন
ঘরোয়া তিন খাবারেই ফুসফুস থাকবে পরিষ্কার

প্রতিদিনের কিছু ভুল অভ্যাসের কারণে আমাদের ফুসফুস নষ্ট হতে থাকে। তাছাড়া যাদের ধূমপানের অভ্যাস রয়েছে, তাদের ফুসফুস নষ্ট হয়ে যাওয়ার ঝুঁকি সব থেকে বেশি।

ধূমপান ফুসফুসকে ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে। ধূমপানের কারণে ফুসফুসে বিষাক্ত পদার্থ জমা হয়। এর ফলে ফুসফুস ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ক্যানসারও হতে পারে। তবে এমন কিছু খাবার আছে, যা ফুসফুস পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। চলুন জেনে নেয়া যাক সেগুলো-

আদা
প্রতিদিনের রান্নায় আমরা অনেকেই আদা ব্যবহার করি। অনেকেই আবার আদা দিয়ে চা বানিয়েও পান করেন। ঘরোয়া দাওয়াই হিসেবে আদা বেশ পরিচিত। এটি শ্বাসতন্ত্রের ক্ষতিকর পদার্থ নষ্ট করতে সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে এক টুকরো আদা চিবিয়ে খেলে ফুসফুস থেকে ক্ষতিকর পদার্থ সরে যাবে। ফলে ফুসফুস পরিষ্কার থাকবে।

লেবু
লেবুর অনেক ওষুধি গুণ রয়েছে। কুসুম গরম পানিতে সামান্য লবণ ও লেবু মিশিয়ে নিয়মিত পান করলে ফুসফুস পরিষ্কারে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। এছাড়া লেবু ওজন কমাতেও বেশ সহায়ক।

গ্রিন টি
নিয়মিত চা পানের অভ্যাস অনেকেরই থাকে। তবে তা দুধ চা না হয়ে গ্রিন টি হলে সব চেয়ে বেশি উপকারী। এটি দেহের নানান রোগ থেকে মুক্তি দেয়। এমনকি ফুসফুস পরিষ্কার রাখতেও সহায়তা করে। তাই সবুজ চা খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।