যে ৪ কৌ,শ’লে না,রী’কে উ,ত্তে’‌জি’ত করে দী,র্ঘ স’ম’য় স,হ’বা’স উ’প’ভো’গ ক’র’বেন!

৪ কৌশল নারীকে যৌ’’ন উত্তেজিত করার, দীর্ঘ সময় যৌ’’নমিলন উপভোগ
১) সিঙার : বেশির ভাগ নারী মিলনপুর্ব সিঙারে সরাসরি যৌ’’ন মিলনের চেয়ে বেশি তৃ’প্তি পেয়ে থাকে। তাই ফোর-প্লে তে অধিক সময় নিন।

২) কল্পনা/ফ্যান্টাসী : শাররীক মিলনকালে অথবা অন্য সময় যৌ’’নতা নিয়ে কল্পনা করা মোটেও ভুল নয়। স’ঙ্গীর উত্তেজক কর্মকা’ন্ডের সাথে আপনার কল্পনা মিশিয়ে এক সুখকর আবেশে জড়াতে পারেন। কল্পনার রাজ্যে সব পুরুষ রাজা আর তার স’ঙ্গী রাণীর আসনে থাকে।

৩) সরাসরি মিলনে দেরী করা : নারী, বিশেষ করে তরুনীরা সাধারনত বেশি বেশি চুমা, ছোয়াসহ অন্যান্য আনুষা’ঙ্গিক যৌ’’ন উত্তেজক বি’ষয় একটু বয়স্কদের চেয়ে বেশি কামনা করে। বয়সভেদে চরম উত্তে’জনায় পৌছতে কম/বেশি সময় নিয়ে থাকে। আপনার স’ঙ্গীর আকাঙ্খার উপর ভিত্তি করে পেনিট্রেশানের আগে আরো কিছু সুখ আ’দান প্রদান করুন।

৪) ভাইব্রেটর : আমা’দের দেশে এখনো সে’ক্স টয় বিক্রি ও ব্যবহার নি’ষি’দ্ধ। তাই নারীকে উত্তেজিত করার জন্য ভাইব্রেটর এর যৌ’’না’ঙ্গের কিছুটা ভিতরে অ’তি সংবেদনশীল অঞ্চল এ কম্পন সৃষ্টি করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন কোন অভ্যাস যেন স্থায়ী না হয়ে যায়।

এছাড়া নিম্নলিখিত উপায়গু’’লি অবলম্বন করলে দ্রুত নারীর কাম উত্তে’জনা বৃ’দ্ধি পায়। তা হলো :
‘মুখ, কপাল, গাল ইত্যাদি স্থানে ঘন ঘন চুম্বন করা ও ধীরে ধীরে ঘর্ষণ করা।
‘স’ঙ্গমের পূর্বে নারী দে’হের বিভিন্ন স্থান স্প’র্শ করলে, ধীরে ধীরে নাড়াচাড়া করলে কাম উত্তে’জনা জাগে।
‘নারীর যৌ’’ন ইন্দ্রয়গু’’লি স্প’র্শ, ঘর্ষণ ও ম’র্দন করা উচিত।

‘বিশেষ করে স্তন ও ভগাঙ্কুর ম’র্দন কাম উত্তে’জনার সহায়ক।
‘প্রয়োজন হলে ধীরে ধীরে আ’ঘা’ত করা, দংশন করা বা নি’পীড়ন করা চলে।
‘সহ’বাসের আগে উপরোক্ত বি’ষয়ে স্ত্রী’কে ভালভাবে উত্তেজিত কারা’ একান্ত আবশ্যক-অন্যথায় স্ত্রী’র অ’তৃ’প্তি থেকে যেতে পারে।