ট্রায়াল রুমে চেঞ্জ করছেন, গোপন ক্যামেরা নেই তো

অনেক সময় শপিং করতে গিয়ে ট্রায়াল রুমে গিয়ে আমরা কাপড় পরে দেখি। এতে করে বাড়িতে এনে মাপে এদিক ওদিক হওয়ার ভয় থাকে না। আবার অনেক কর্ম প্রতিষ্ঠানে দেখা যায়, কর্মীরা অফিসে এসে নির্দিস্ট পোশাক পরেন। বিশেষ করে হাসপাতাল বা ব্র্যান্ডের দোকানগুলোতে।

বাড়ি ফেরার সময় আবার সেই পোশাক বদলে নেন তারা। নারীদের জন্য এই ট্রায়াল রুমে অনেক সময় ফাঁদ পাতা থাকে। গোপন ক্যামেরা লাগানো থাকে।

এর ফলে পরতে পারেন নানা সমস্যায়। তাই আগেই নিশ্চিত হোন এখানে লুকানো কোনো ক্যামেরা বসানো আছে কিনা। এরপর পোশাক চেঞ্জ করুন।কারণ এই রুমগুলোর মধ্যে লুকানো ক্যামেরায় ধারণ করা বিভিন্ন স্পর্শকাতর ছবি ও ভিডিও দিয়ে তৈরি করা হতে পারে আপত্তিকর কোনো কনটেন্ট।

যেগুলো দিয়ে আপনাকে হয়রানি করা হতে পারে। এজন্য যারা বাইরের চেঞ্জ রুম ব্যবহার করেন তারা শুরুতেই সচেতন হোন। নিজেকে নিরাপদ রাখতে এবং গোপন ক্যামেরা আছে কিনা তা বুঝবেন যেভাবে-

আরো পড়ুন: গসিপ করতেই বেশি পছন্দ করেন এই রাশির মানুষেরা

> ট্রায়াল রুমে ঢুকে প্রথমেই চারপাশ খুব ভালোভাবে দেখে নিন।

> হ্যাঙার, কাঠের দেয়ালের খাঁজ বা ভাজে চোখ রাখুন। কোনো জানালা থাকলে সেটিও লক্ষ্য করুন।

> জানালা খোলা থাকলে আটকে নিন।

> আয়নায় লক্ষ্য করুন যদি উল্টোদিকে অন্য ঘর বা দেয়াল দেখতে পান, বুঝবেন ঝামেলা আছে।

> দরজায় যেভাবে টোকা দেন, আয়নায়ও সেভাবে টোকা দিন। ফাঁপা শব্দ হলে, সাবধান হোন লুকানো ক্যামেরা আপনাকে দেখছে।

> আয়নায় আঙুল ছোঁয়ান। আঙুল আর প্রতিফলনের মধ্যে দূরত্ব থাকলে বুঝবেন ক্যামেরা রয়েছে।

> পোশাক চেঞ্জ করে নতুন পোশাক পরতে যদি ট্রায়াল রুম ব্যবহার করেন। তবে নিজেকে নিরাপদ রাখতে, ভেতরের বাতিগুলো নিভিয়ে নিন।

> মোবাইল ফোনের আলোতে পোশাক চেঞ্জ করুন, এরপর বাতি জ্বেলে আয়নায় দেখে নিন, কেমন লাগছে।

আর সচেতন থাকার পরও যদি কোনো ধরনের সমস্যার মুখোমখি হোন। সংকোচ না করে ৯৯৯ -এ ফোন করে, সাইবার ক্রাইম বিভাগের সহযোগিতা নিন।