সুখবরঃ অ’পেক্ষা শেষ, মা’র্চে খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান!

সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ভা’র্চুয়াল এক সংবাদ সম্মেলনে ফেব্রুয়ারিতে স্কুল খুলে দেয়ার কথা বললেও তা হয়নি। তার নির্দেশনা মতে প্রস্তুতিও শুরু হয়েছিল । সংশ্লিষ্ট দফতর-সংস্থাগুলো এ বিষয়ে কাজ করেছে বলে জানা গেছে।

এবিষয়ে মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গো’লাম ফারুক সাংবাদিকদের বলেন, “শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার কাজ শুরু করা হয়েছিল”। পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে হয়ত ফেব্রুয়ারিতেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হতো, তবে তা হয়নি। এখন দেশে করো’না টিকা এসেছে। সবাইকে টিকা নেয়ার জন্য উদবুদ্ধ করা হচ্ছে। আশা করা যায় এ মাসের মধ্যেই একটা বড় অংশ অক্রোনা টিকে নেবে।

জানা গেছে, শিক্ষকদের সবাইকে করো’না টিকা নেয়ার ব্যাপারে নির্দেশনা দিয়েছে সরকার । মোটামোটি ভাবে টিকা নেয়ার পরিমান বাড়লে করো’নাও কমে আসবে। আর গরম ও পরতে শুরু করেছে। দিন দিন করো’না আ’ক্রান্তের সংখ্যাও কমছে। আম’রা অবশ্যই ভালোর দিকেই যাচ্ছি । এমন চলতে থাকলে উপর মহল থেকে ভাল সংবাদই দেয়া হবে।

করো’না পরিস্থিতি বিবেচনায় চলমান স্কুল-কলেজের ছুটি বাড়ানো হয়েছে। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। তবে কওমি মাদরাসা এ ছুটির আওতামুক্ত থাকবে। জানা গেছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এই ছুটি আর নতুন করে বাড়ানো হবে না, আগামী মাসের শুরু থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে।

আশা করা যায় এটাই হবে শে বারের মত ছুটি। আর ছুটি নাও বাড়তে পারে । সেক্ষেত্রে মা’র্চেই সব স্কুল কলেজ খুলে দেয়া হতে পারে। তবে প্রথমেই সব শিক্ষার্থীর ক্লাস শুরু হবে না। এ ক্ষেত্রে চলতি বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সিলেবাস শেষ করতে ক্লাস শুরু করা হবে।

ধাপে ধাপে অন্যান্য শ্রেণির ক্লাস শুরু করা হবে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিজ্ঞান, বাণিজ্য ও মানবিক বিভাগ থেকে প্রতিদিন একটি বিভাগের শিক্ষার্থীদের ক্লাস নেয়া হবে। বর্তমানে সে ধরনের ক্লাস রুটিন তৈরির কাজ শুরু করতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশনা দিতে যাচ্ছে মাউশি।