কনের ইচ্ছা পূরণে হেলিকপ্টারে চড়ে প্রকৌশলীর বিয়ে

বাড়িতে ধুমধাম বিয়ের আয়োজন। গেট, প্যান্ডেল থেকে শুরু করে কয়েকশ’ মানুষের ভুরিভোজ আয়োজনও। দেখে বোঝার উপায় নেই যাদের জন্য এ আয়োজন, সেই বর-কনে সম্প’র্কে ওই বাড়ির কেউই না। একজন উপজেলা চেয়ারম্যান দায়িত্ব নিয়ে নিজের বাড়িতে এমন আয়োজনে বিয়ে দিলেন পিতৃহী’ন অসহায় বর-কনের। কনে তার বাসার গৃহকর্মী ছিলেন।

এমন মানবিক উদ্যোগে প্রশং’সায় ভাসছেন হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মুশফিউল আলম আজাদ। শুধু বিয়েই নয়, ওই নবদম্পতি কীভাবে চলবেন, জীবিকা করবেন, তাও ভেবেছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ তহবিল থেকে তিন লাখ টাকার বরা’দ্দ দিয়ে তৈরি করে দিয়েছেন দৃষ্টিনন্দন একটি বাড়ি। এছাড়া চেয়ারম্যান ব্যক্তিগত তহবিল থেকে বরের আর্থিক সচ্ছলতার জন্য একটি নতুন ইজিবাইকও উপহার দিয়েছেন।

বৃহ্স্পতিবার উপজেলা চেয়ারম্যানের বাড়ি লাখাইয়ের করাব গ্রামে আয়োজন হয় এ বিয়ে অনুষ্ঠান। বর উপজেলার করাব গ্রামের মৃত আফরোজ মিয়ার ছেলে মনির মিয়া (২৫)। আর কনে পূর্ব বুল্লা গ্রামের মৃ’ত অনু মিয়ার মেয়ে জোনাকি (১৯)।

এ ব্যাপারে লাখাই উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুশফিউল আলম আজাদ বলেন, সামাজিক দায়ব’দ্ধ’তা থেকে দুটি অ’সহায় পরিবারের বর-কনের বিয়ের আয়োজন করেছি। আসলে কনে জোনাকি দীর্ঘদিন ধরে আমার বাসায় কাজ করে পরিবারের একজন হয়ে উঠেছিল। এছাড়া বর তার পাশের বাড়ির বাসিন্দা।