একই পরিবারের ৫৭ জন কোরআনের হাফেজ

পবিত্র কোরআন শরিফের হাফেজ হয়েছেন পটুয়াখালীর জে’লার বাউফল উপজে’লায় একই পরিবারের ৫৭ জন। এমন বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে এরই মধ্যে পটুয়াখালী জে’লায় সুনাম কুড়িয়েছেন বাউফল উপজে’লার বাঁশবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা শাহ’জাহান হাওলাদার।

৫৭ জন পবিত্র কোরআন এর হাফেজ হলেন- হাফেজ মা’ওলানা মজিবুর রহমান, হাফেজ মা’ওলানা নূর হোসেন, হাফেজ মা’ওলানা আবু বকর, হাফেজ মা’ওলানা মোহাম্ম’দ হাসান, হাফেজ মা’ওলানা মো. সোলাই’মান, হাফেজ মা’ওলানা এম’দাদুল্লাহ্, হাফেজ মা’ওলানা তালহা, হাফেজ ইব্রাহীম, হাফেজ মো. জোবায়ের, হাফেজ মা’ওলানা সালাহ্ উদ্দিন, হাফেজ মা’ওলানা সালমান, হাফেজ মা’ওলানা জোনায়েদ, হাফেজ মা’ওলানা সফিক, হাফেজ মা’ওলানা সিদ্দিকুর রহমান, হাফেজ মা’ওলানা সাইফুল্লাহ্, হাফেজ মা’ওলানা আবদুল্লাহ্, হাফেজ মা’ওলানা লোকমান, হাফেজ মা’ওলানা রাইহান, হাফেজ মা’ওলানা ইম’রান, হাফেজ মোহাম্ম’দ, হাফেজ মা’ওলানা ইলিয়াস, হাফেজ আহম’দ, হাফেজ মা’ওলানা নোমান, হাফেজ মা’ওলানা রেদওয়ান, হাফেজ মা’ওলানা রোহান, হাফেজ মা’ওলানা সানাউল্লাহ্, হাফেজ মা’ওলানা সাকাওয়াতুল্লাহ্, হাফেজ মা’ওলানা আব্দুল্লাহ্, হাফেজ আবদুল আলীম, হাফেজ মা’ওলানা জোবায়ের, হাফেজ মা’ওলানা আবদুল্লাহ্, হাফেজা মা’ওলানা মানসুরা, হাফেজা মা’ওলানা ফারহা, হাফেজা মা’ওলানা মা’রওয়া, হাফেজা মা’ওলানা ফাতেমা, হাফেজা মা’ওলানা রাহিমা, হাফেজা বুশরা, হাফেজা ইস’রা, হাফেজা মোসা. খাদিজা, হাফেজা মোহাইমিনা, হাফেজা মু’সফিকা, হাফেজা মোবাশ্বেরা, হাফেজা সামসুন্নাহার, হাফেজা নাসিমা, হাফেজা সুমাইয়া, হাফেজা মা’রজান, হাফেজা আফনান, হাফেজা রাউয়ান, হাফেজা খানসা, হাফেজা মনিরা, হাফেজা উম্মেহানী, হাফেজা নাসরিন, হাফেজা নাদিফা, হাফেজা আম্মা’রা, হাফেজা আয়শা, হাফেজা সামাইয়া মনি, হাফেজা আবু হোরায়রা, হাফেজ হুজাইফা।

স্থানীয়রা বলেন, বাউফল সদর উপজে’লার বাঁশবাড়িয়া গ্রাম এলাকার বাসিন্দা আকরাম হাওলাদার পেশায় শিক্ষক ছিলেন। আকরাম আলী হাওলাদারের ছে’লে নুর মোহাম্ম’দ হাওলাদার তিনিও পেশায় শিক্ষক ছিলেন। নুর মোহাম্ম’দ হাওলাদারের ছে’লে শাহ’জাহান হাওলাদারের সঙ্গে কনকদিয়া ইউপির বোলতলী গ্রাম এলাকার বাসিন্দা কাঞ্চন মুন্সি সিকদারের মে’য়ে মাঞ্জুরা বেগমের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।

শাহ্জাহান ও মাঞ্জুরা দম্পতির ঘর আলো করে একে একে ছয় ছে’লে ও চার মে’য়ে জন্ম নেন। শাহ’জাহান হাওলাদার বাউফল সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। তিনি নিজ এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রতিষ্ঠা করেছেন হাফেজিয়া মাদরাসা। পবিত্র কোরআনের হাফেজ বানিয়েছেন নিজের ছে’লে-মে’য়েসহ পরিবারের অন্যদেরও। তাদের বিয়েও দিয়েছেন হাফেজদের সঙ্গে। বর্তমানে তার পরিবারে ৫৭ জন কোরআনের হাফেজ।

শাহ’জাহান হাওলাদার জানান, তার বাবা (নুর মোহাম্ম’দ) ছিলেন ধ’র্মপ্রা’ণ মু’সলমান। তিনি হ’জ পালন করতে সৌদি আরবে যান। সেখানে হ’জ পালনরত অবস্থায় মা’রা যান। তার বাবা হাফেজদের খুব ভালোবাসতেন। এ কারণেই লক্ষ্য স্থির করেন, পরিবারের সবাইকে হাফেজ বানাবেন।

বাউফল আশরাফুল কওমি মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা হাফেজ মা’ওলানা মাইনুল ইস’লাম বলেন, সমাজে একই পরিবারের ৫৭ জন কোরআন শরিফের হাফেজ হওয়ায় শাহ’জাহান হাওলাদার জে’লায় সুনাম কুড়িয়েছেন। ৪৫ বছর আগে স্ত্রী’র ১৩ ভরি স্বর্ণ ও ১৩ কেজি রুপা মাদরাসায় দান করেন তিনি। তা দিয়েই বাড়ির সামনে প্রথম মাদরাসা স্থাপন করা হয়। এখনো নিজের খরচে মাদরাসা পরিচালনা করছেন।

সরেজমিন দেখা গেছে, জামিয়া ইস’লামীয়া আ’মেনা খাতুন মহিলা মাদরাসায় শাহ’জাহান হাওলাদারের ছে’লে হাফেজ জোবায়ের শিক্ষার্থীদের কোরআন পড়াচ্ছেন। শিক্ষার্থীরা সুমধুর কণ্ঠে কোরআন তিলাওয়াত করছেন