দেশের তৈরি গ্লোবের টিকা মানবদেহে পরীক্ষার অনুমোদন এখনো মেলেনি

মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের অনুমোদন চেয়ে ১৭ জানুয়ারি বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের (বিএমআরসি) কাছে আবেদন করেছিল দেশের একমাত্র করোনা টিকা উদ্ভাবনের দাবিদার গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড। মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো অনুমোদন দেয়া বা না দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসেনি বিএমআরসির পক্ষ থেকে।

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাতে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত না আসায় জাগো নিউজের কাছে ‘হতাশা’ প্রকাশ করেন গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের রিসার্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিপার্টমেন্টের অ্যাসিসটেন্ট ম্যানেজার ও ইনচার্জ ড. আসিফ মাহমুদ।তিনি বলেন, ‘আমরা বিএমআরসিতে থার্ড পার্টি সিআরও’র মাধ্যমে হিউম্যান ট্রায়ালের এথিক্যাল অ্যাপ্রোভমেন্টের জন্য আবেদন করেছিলাম। বিএমআরসি থেকে আমাদের সিআরও প্রতিষ্ঠানকে একটা রিভিউ দিয়েছিল। সেখানে বেশ কিছু বিষয়ে জানতে চেয়েছিল তারা। আমরা যে প্রটোকল জমা দিয়েছি, সেটার ব্যাপারে তাদের কিছু প্রশ্ন ছিল। যেগুলো তারা পরিষ্কার হতে চেয়েছে।

সেগুলোর উত্তর গত বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বিএমআরসির কাছে জমা দিয়েছে আমাদের সিআরও। এখন আমরা আবার বিএমআরসির চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য অপেক্ষা করছি।’আসিফ মাহমুদ আরও বলেন, ‘সাধারণত বিএমআরসি এর চেয়ে অনেক বেশি সময় নেয়। কিন্তু এখন তো স্বাভাবিক সময় না। সেজন্য আমাদের একটা আশা ছিল যে, বিএমআরসি দ্রুত সময়ে এটা দেবে। সেই হিসেবে হয়তো একটু দেরিই হয়েছে। তারপরও আমার মনে হয়, বিএমআরসি তাদের সক্ষমতা অনুযায়ী যথাসাধ্য চেষ্টা করছে। কিন্তু আমাদের দেশে যখন কোনো কাজ হয়, সেটা একটু ধীর গতিতেই হয়।’

বিএমআরসির কাছ থেকে এথিক্যাল অনুমোদন পাওয়ার পর ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের কাছ থেকে রেগুলেটরি অনুমোদন নিতে হবে গ্লোবকে।এ বিষয়ে আসিফ মাহমুদ বলেন, ‘আবার ডিজিডিএ’র রেগুলেটরি অনুমোদনও লাগবে। আমরা আশা করছি, ডিজিডিএতে এত সময় লাগবে না।