এরই নাম মাতৃস্নেহ! আহত বাছুরের পিছনে ব্যাকুল হয়ে ছুটে চলেছে মা গরু।

বড়ই বিচিত্রময় আমাদের এই পৃথিবী আর তার চেয়ে বেশি বৈচিত্রময় আমাদের এই মানব সমাজ। বর্তমান ইন্টারনেটের যুগে সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যানে আমাদের চারপাশে এমন অনেক কিছুই দেখে থাকি

যা কিনা আমাদের কখনো আনন্দ দেয়, কখনো অবাক করে আবার কখনো চোখ ভাসিয়ে কাঁদায়। এমনি একটি বৈচিত্রময় বিষয় নিয়ে হাজির হয়েছি আপনাদের সামনে।

পৃথিবীর কোন ভালোবাসার কাছে মা’তৃ’স্নে’-হের তুলনা করা হয়তো ভুল হবে। মা’তৃস্নে’হ অপার মম’তাময়ী এবং অত্যন্ত আ’বেগ’পূ’র্ণ।

পৃথিবীতে কোন কিছুকে হয়তো তার মায়ের থেকে কেউ বেশি ভালবাসতে পারে না। একজন মা নিজের স্নে’হে’র মাধ্যমে তার স’ন্তা’নকে বড় করে তোলেন।

সন্তানের বড় হওয়ার ক্ষেত্রে বাবার অব’দান থাকলেও, সবথেকে বেশি অবদান হয়তো মায়ের থাকে। মাকে ছাড়া কোনো সং’সার সম্পূর্ণ হয় না।

একজন মানুষ যখন সবথেকে খুশি থাকে তখন তার মাকে খুঁজে, আমার যখন সবথেকে দুঃ”খে থাকে তখনও তার মা’কে খুঁ’জে।

পাশাপাশি মানুষের ক’-ষ্ট সব থেকে বেশি আগে লক্ষ্য করে তার মা। তবে শুধুমাত্র মানুষ কেন, দুনিয়ার প্রত্যেকটি প্রা’ণী’র ক্ষেত্রে এই একই নিয়ম কাজ করে।

অবলা সব প্রাণীর ক্ষেত্রে মায়ের স্নে”হ একেবারে খাঁ’টি একটি জিনিস। এই জিনিসটি ছাড়া পৃথিবীর কিছুই যেন ঠিক থাকে না।

স’ন্তা’নের কোনো আ-‘ঘা-ত লাগলে মায়ের মন সবার আগে কেদে ওঠে। সে মানুষ হোক বা কোনো জী’ব জ’ন্তু, সবার ক্ষেত্রেই এটা ল’ক্ষি’ত হয়।

সম্প্রতি এর একটি উদাহরণ সোশাল মিডিয়ায় উঠে এসেছে। ভিডিওটি আপনি দেখলে আপনিও চো’খে’র জ’ল আ’টকে রাখতে পারবেন না।

ভিডিও থেকে জানা যাচ্ছে, একটি গাড়ির ধা-‘ক্কা-য় একটি বা’ছুর বেশ ভালোমত আ-‘হ-ত হয়েছে। এবং তার মা অর্থাৎ সেই গরুটি তার জন্য চি’ন্তায় আছে।

ভিডিওটি দেখে বোঝা যাচ্ছে, ঘ’ট’নাটি ঘটেছে ওড়িশার একটি জায়গায়। সেখানে একটি মা গ’রু তার বা’ছুরের জন্য চি’ন্তায় আকুল।

সেই বাছু’রটি গাড়ির ধা’-ক্কা-য় বেশ আ-‘হ-ত হয়েছে। আ-‘হ-ত হওয়ার সাথে সাথেই স্থানীয় মানুষেরা ত’ড়িঘড়ি সেই বাছু’রকে ভ্যা’নে তুলে স্থানীয় প’শু হা’স’পা’তালে নিয়ে যান।

নিজের স’ন্তা’নকে ওভাবে দেখে সত্যিই চি’ন্তিত মা গরু। এই গরু যখনই দেখতে পায় তার স’ন্তা’নের এরকম অবস্থা, তখনই সে সেই ভ্যা’নের পিছু নেওয়া শুরু করে।

ভ্যানের গতি বাড়তে শুরু করলে মা গ”রুও তার হাঁ’টা’র গতি বাড়িয়ে ফেলে। এভাবে সে অ’তি’ক্র’ম করে ৩ কিলোমিটার রাস্তা।

নেটিজেনদের কাছে এই ভিডিও বেশ মজাদার ভিডিও হিসাবে উঠে এসেছে। নেটিজেনরা প্র’শং’সা’য় ভরিয়ে দিয়েছেন এই ভিডিও ক’মে’ন্ট বক্সে।

পাশাপাশি তারা ওই বাছুরের সু’স্থ’তা কামনা করেছেন ভগবানের কাছে। আমরা জানতে পেরেছি, এই বা’ছু’রটি খুব শীঘ্রই আবারো সু’-স্থ হবে। ডাক্তাররা চেষ্টা চালাচ্ছেন এই বা’ছুরকে সু’-স্থ করার।

মানুষের মধ্যে এরকম ভালো’বাসা থাকার নিদর্শন আমরা আকছার পাই। কিন্তু এরকম অ’ব’লা প্রা’ণী’দের মধ্যে এরকম একটা মা”তৃ’স্নে’-হের ভিডিও খুব কমই পাওয়া যায়।